banglanewspaper

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া ঘাটে আজ মঙ্গলবার ভোরে ফেরি থেকে পন্টুনে ওঠার সময় পদ্মায় পড়ে যায় পণ্যবাহী একটি গাড়ি।

এ সময় অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা পান ট্রাকের চালক ও সহকারী। গাড়িটি ঢাকা থেকে ফরিদপুরের বোয়ালমারী যাচ্ছিল। ফায়ার সার্ভিসের সহযোগিতায় রেকারের সাহায্যে বেলা ১১টার দিকে গাড়িটি উদ্ধার করা হয়।

সকালে দৌলতদিয়ার তিন নম্বর ফেরিঘাটে দেখা যায়, তিন নম্বর ফেরিঘাটের সামনে পন্টুন থেকে পড়ে যাওয়া গাড়িটি উদ্ধারে সেখানে জড়ো করা হয়েছে একটি রেকার। ডুবন্ত গাড়ির সন্ধানে সেখানে কাজ করছে গোয়ালন্দ ফায়ার সার্ভিস ও পাটুরিয়া থেকে আসা ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল। এ ছাড়া সেখানে ছিল বিআইডব্লিউটিসি, থানা ও নৌ–পুলিশ। সবাই সম্মিলিতভাবে গাড়িটি উদ্ধারে কাজ করছে। 

দৌলতদিয়ার তিন নম্বর ফেরিঘাটের পন্টুনের দায়িত্বপ্রাপ্ত ইনচার্জ সারেং মো. শাহজাহান বলেন, আজ ভোরে তিনি ফজরের নামাজ আদায় করতে স্থানীয় মসজিদে যান। সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে ঘটনাস্থলে পৌঁছে জানতে পারেন, ফেরি থেকে নামার সময় পণ্যবাহী একটি গাড়ি নদীতে পড়ে গেছে। তিনি খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন, আজ ভোর ছয়টার দিকে বাহির পকেটে ইউটিলিটি ফেরি মাধবীলতা এসে ভেড়ে। ফেরিটি ভেড়ামাত্র পন্টুনে ওই সময় দায়িত্বে থাকা লস্কর মো. রিপন পন্টুনের সঙ্গে ফেরির রশি বেঁধে ফেলেন। এরপর একে একে গাড়ি নামতে থাকে। পন্টুনের আরেক পকেটে বড় ফেরি কেরামত আলী এসে ভেড়ে। এই ফেরি থেকেও গাড়ি আনলোড হতে থাকে। মাধবীলতা ফেরিতে থাকা ট্রান্সপোর্টের মালামাল বোঝাই গাড়ি নামতে থাকে। সামনের দুই চাকা পন্টুনের ওপর রাখা মাত্র ঝাঁকুনিতে পন্টুন থেকে ফেরির রশি ছুটে যায়। মুহূর্তের মধ্যে পন্টুন থেকে ফেরি সরে গেলে মাঝে ফাঁকা হয়ে যায়।

গাড়ি চালক মো. শাহজাহান বলেন, গতকাল সোমবার দিবাগত রাত তিনটার দিকে ঢাকা থেকে ট্রাকে করে আগমনী ট্রান্সপোর্টের মালামাল নিয়ে ফরিদপুর বোয়ালমারীর উদ্দেশে রওনা হন। সকাল সোয়া ছয়টার দিকে পন্টুন থেকে গাড়ি নদীতে পড়ে গেলে তিনি ও সহকারী আসমাউল লাফ দিয়ে প্রাণে রক্ষা পান। না হলে গাড়ির সঙ্গে তাঁদেরও পানিতে ডুবতে হতো।

ট্যাগ: bdnewshour24 নদী পণ্যবাহী গাড়ি