banglanewspaper

সম্পর্ক থাকলে যেন খুব সহজেই গায় হাত তোলা যায়। এ যেন অলিখিত অধিকার! আর এমন ধারণায় যে আস্কারা দেয় শুধুই পুরুষ, তা কিন্তু নয়। মহিলারাও বিশ্বাসী এই ‘মানিয়ে নেওয়াতে’। তাদের মুখেই শোনা যায়, “ভালোবাসা থাকলে একটু আধটু মারধরও চলে!” “পুরুষ মানুষের রাগ একটু বেশিই থাকে, মেয়েরাই পারে তাদের মুখে হাসি ফোটাতে!” 

আর এই গৎবাঁধা পুরুষতন্ত্রের বিরুদ্ধে এবার মুখ খুললেন তাপসী পান্নু।

ভ্যালেন্টাইনস ডে-তেই একটি ভিডিও পোস্ট করেন তাপসী। সেই ভিডিওয় দেখা যাচ্ছে, পাত্রী দেখতে এসছে পাত্রপক্ষ। পাত্রীর আসনে খোদ তাপসিই। পাত্রী যোগ্য কিনা তা বিচার করা হচ্ছে, বরের কাছে মার খেতে কতটা প্রস্তুত তার উপরে। 

পাত্রী বলছে, “আমার তো ছোটবেলা থেকেই থাপ্পড়ের ট্রেনিং আছে। বাবার সব রাগ মাকে থাপ্পড় মেরেই মেটাতো। অফিসের স্ট্রেস থেকে মায়ের বাম গালে, আর সংসারের স্ট্রেস থেকে ডান গালে চড় মারত বাব।”

পাত্রীর মুখে এই কথা শুনে পাত্রও বেজায় খুশি! সেও দেরি না করে তরিঘড়ি জানিয়ে দেয়, এই বিয়েতে তার মতামত রয়েছে। তৎক্ষণাৎ পাত্রী বলে, “আমিও আপনাকে বিয়ে করব। কিন্তু আপনাকে ভালোবাসব না।”

হবু স্ত্রীর মুখে এই কথা শুনে পাত্রের চোখ ছানাবড়া। তৎক্ষণাৎ সে বলে, “বিয়ে আমায় করবে। থাপ্পড় খাবে আমার থেকে। তাই আমাকেই তো ভালোবাসবে, তাই না?”

তখন তাপসী বলেন, “ভালোবাসায় তো চড় থাপ্পড় চলে না। ভালোবাসায় কি থাপ্পড় মারার লাইসেন্স আছে?”

এই ভিডিওই এই মুহূর্তে সোস্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল। আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি মুক্তি পেতে চলেছে এমন ঘটনার উপর নির্ভর তাপসীর ছবি থাপ্পড়।

ট্যাগ: bdnewshour24 ভিডিও