banglanewspaper

নিজস্ব প্রতিবেদক: পৌর এলাকায় খাজনা ও টোল আদায়ের ঘোষণায় বাজার পরিচ্ছতায় বাধা দেয়ার অভিযোগ উঠেছে ফরিদপুরের মধুখালী বাজার বণিক সমিতি লিমিটেডের বিরুদ্ধে। জমে থাকা ময়লায় অতিষ্ঠ ব্যবসায়ী ও সাধারণ মানুষ। এ অচল অবস্থা থেকে মুক্তি দিতে বুধবার সকালে পৌর বাজার পরিচ্ছন্নতায় নামেন পৌর মেয়র খন্দকার মোরশেদ রহমান লিমন নিজেই।

এর আগে গত শনিবার মধুখালী বাজার বণিক সমিতি লিমিটেডের ব্যানারে পৌর এলাকায় খাজনা, নতুন করারোপের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ এবং গণশৌচাগার ও পরিবহন স্ট্যান্ডসহ বিভিন্ন দাবিতে সমাবেশ করে। সমাবেশের পর থেকে পৌর এলাকায় বিশেষ করে পৌর বাজারে ময়লা পরিচ্ছন্নতায় বাধা দেয় মধুখালী বাজার বণিক সমিতির লিমিটেড। 
সম্প্রতি পৌরসভার পক্ষ থেকে বাজার ইজারা ও টোলের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর এই প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়।

এরই প্রতিবাদে পৌর মেয়র নিজেই বাজার পরিচ্ছন্নতা অভিযানে নামেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- প্যানেল মেয়র মির্জা আব্বাস হোসেন, পৌর সচিব হেমায়েত হোসেন, ওয়ার্ড কাউন্সিলর কামরুজ্জামান বাবু, আনিসুর রহমান লিটন, ইতি বেগম, জাহিদুল ইসলাম জিন্নাহ, মোশাররফ হোসেন, আব্দুল হান্নান, নাজমা বেগম, হিরা বেগম, রেশমা বেগম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ প্রচার সম্পাদক রেজাউল করিম তুহিন, ১ নং পৌর আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আশিকুর রহমান নান্নু, যুবলীগ নেতা আনোয়ার হোসেন, ছাত্রলীগ নেতা মো. মমিন বিশ্বাসসহ পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

পৌর মেয়র বলেন, ‘২০১৫ সালের মাঝামাঝিতে নির্বাচিত হয়ে দায়িত্ব গ্রহণের পর স্বল্প সময়ের মধ্যে পৌরসভাটি দ্বিতীয় শ্রেণিতে উন্নীত করা হয়েছে। সরকারের লক্ষ্য অনুযায়ী পৌরসভার উন্নয়ন কার্যক্রম চলমান। পৌর এলাকায় যেসব সমস্যা আছে পর্যায়ক্রমে সমাধান করা হচ্ছে। এরই মধ্যে রাস্তা ও ড্রেন নির্মাণের দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে। শিগগিরই কাজ শুরু হবে। এসব উন্নয়নকে বাধাগ্রস্থ করতে একটি মহল সক্রিয় হয়েছে।’

‘পৌরসভার মধ্যে অবস্থান করলে সরকারি নিয়মানুযায়ী কর পরিশোধ করতে হয়। তাই নিয়মতান্ত্রিকভাবেই করারোপের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।’ 

একই দিন পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের দত্তপাড়া দিঘিরপাড় হতে রেললাইন পর্যন্ত প্রায় ৭৭০ মিটার কার্পেটিং রাস্তার উদ্বোধন করা হয়। রাস্তাটির প্রাক্কলিত ব্যয় ধরা হয়েছে ৪৮ লাখ টাকা।

ট্যাগ: bdnewshour24 পরিচ্ছন্নতায় পৌর মেয়র