banglanewspaper

কেন্দুয়া (নেত্রকোণা) প্রতিনিধি : নেত্রকোণার কেন্দুয়ায় ২দিনে ২শিক্ষার্থীসহ ৩জনের অস্বাভাবিক মৃত্যু ঘটনা ঘটেছে। শিক্ষার্থীদের মৃত্যুর ঘটনায় অভিভাবক মহলে উদ্বেগ সৃষ্টি হয়েছে। জানা গেছে, মঙ্গলবার (১৮ ফেব্রুয়ারী) দুপুরে কেন্দুয়া পৌরশহরের সাবেরুন্নেছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী ও মাসুদ রানা কন্যা পুষ্পিতা মেহরিন শ্রেয়ার (১৩) বসতঘরে সিলিং ফ্যানের সাথে ওড়না পেছিয়ে আত্মহত্যা করে।

শ্রেয়ার লাশ ময়নাতদন্ত শেষে গতকাল বুধবার পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। ঘটনার সময় শ্রেয়ার বাসার বাইরে ছিলেন। এ ঘটনায় থানায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

অপরদিকে একই বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী সৈয়দা রিনভী আক্তার (১৬) বুধবার (১৯ ফেব্রুয়ারী) সকালে পৌর সদরের সাউদপাড়া মহল্লায় বাসার রান্নাঘরের আড়ার সঙ্গে গলায় পুরনো কাপড় দিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।

ঘটনার সময় রিনভী আক্তার এর বাবা সৈয়দ মুখলেছুর রহমান ও মা বাসায় ছিলেন না। পরে সকাল ৮টার দিকে বাসায় ফেরেন এবং ঘরে মেয়ে ঝুলন্ত লাশ দেখতে পান। খবর পেয়ে পুলিশ রিনভীর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে। এ ঘটনায় থানায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

এদিকে কেন্দুয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় মঞ্জুরুল হক আকন্দ (৬০) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার দুপুরে উপজেলার কেন্দুয়া-তাড়াইল সড়কের গগডা এলাকায় ঘটে। নিহত মঞ্জুরুলের বাড়ি উপজেলার  মোজাফরপুর ইউনিয়নের পাঁচহারুলিয়া গ্রামে। সুত্র জানায়, বুধবার দুপুর ১২টার দিকে মঞ্জুরুল হক আকন্দ বাইসাইকেলে করে স্থানীয় গগডা বাজারে যাচ্ছিলেন। এ সময় তাড়াইলগামী একটি অটোরিক্সার (ইজিবাইক) চাপায় তিনি ঘটনাস্থলেই মারা যান। পরে স্থানীয়রা অটোরিক্সাটিকে আটক করলেও চালক পালিয়ে যায়। এঘটনাটি স্থানীয়ভাবে মিংমাসার উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে বলে জানা গেছে।

কেন্দুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ রাশেদুজ্জামান জানান, দুইটি ছাত্রী’র আত্মহত্যার ঘটনায় থানায় পৃথক অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে আত্মহত্যার কারণ সম্পর্কে কিছু জানা না গেলেও মৃত্যুর সঠিক কারণ জানতে লাশ দুইটির ময়নাতদন্ত করা হচ্ছে। এই রিপোর্ট এলেই প্রকৃত কারণ জানা যাবে। 

ট্যাগ: bdnewshour24 কেন্দুয়া পৃথক ঘটনা শিক্ষার্থী মৃত্যু