banglanewspaper

সম্প্রতি একটি বাইকের নম্বরপ্লেটে ‘সার্জেন্ট ইমরান আমার বন্ধু’ লেখাসহ একটি ছবি ফেসবুকে ভাইরাল হওয়ার পর ধরা খেলেন আবির নামের সেই বাইকার।

বুধবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর কারওয়ানবাজার সোনারগাঁও ক্রসিংয়ে নম্বরপ্লেটে লেখা দেখে তাকে বাইকসহ আটক করেন দায়িত্বরত ট্রাফিক সার্জেন্ট। আলোচিত ওই বাইকার একজন চাকরিজীবী।

সোনারগাঁও ক্রসিংয়ে দায়িত্বরত সার্জেন্ট আসাদুজ্জামান জুয়েল তার মোটরসাইকেল আটকে নম্বরপ্লেটে ‘সার্জেন্ট ইমরান আমার বন্ধু’ লেখার কারণ জানতে চান।

বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে সার্জেন্ট জুয়েল বলেন, আমি বাইকের পেছনে নম্বরপ্লেটে লেমিনেটিং করা কাগজটি দেখতে পাই। এরপর তাকে আটকে এ লেখার কারণ জানতে চাই। উত্তরে তিনি বলেন, ইমরান তার একজন খুব ভালো বন্ধু। সে তাকে মোটরসাইকেল ক্রয় করা থেকে শুরু করে তাকে চালানো শিখিয়েছেন। তাই বন্ধুর প্রতি কৃতজ্ঞতা থেকেই তিনি নম্বর প্লেটে এটি লাগিয়েছেন।

এ ব্যাপারে আইনের কথা জানিয়ে ট্রাফিক সার্জেন্ট জুয়েল বলেন, মোটরযানে নম্বর প্লেটের স্থানে নম্বর ছাড়া কোনো অঙ্কন, নাম লেখা, খোদাই করা, ঘষামাজা করা, বিজ্ঞাপন দেওয়া আইনে নিষিদ্ধ। মোটরযান আইনের ২০১৮ এর ৯২ (২) ধারায় এই অপরাধের জন্য এক হাজার টাকা জরিমানার বিধান রয়েছে।

তবে ওই বাইকারের গাড়ির রেজিস্ট্রেশন, লাইসেন্স, ইন্স্যুরেন্সসহ সব কাগজপত্র ঠিক ছিল। এছাড়া তিনি তার ভুল স্বীকার করায় তাকে কোনো মামলা না দিয়ে সতর্ক করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

সম্প্রতি স্যোশাল মিডিয়ায় একটি বাইকের নম্বর প্লেটে ‘সার্জেন্ট ইমরান আমার বন্ধু’ লেখাটি ভাইরাল হয়। এ নিয়ে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনার পর বাইকটির সন্ধান করছিল ট্রাফিক পুলিশ।

ট্যাগ: bdnewshour24 সার্জেন্ট মোটরসাইকেল