banglanewspaper

বেসিন রিজার্ভে একটা দল নেমেছিল টানা সাতটি ম্যাচ জিতে। অন্য দলটি নেমেছিল পরপর তিনটি ম্যাচ হেরে। উইলিয়ামসনেদের বিরুদ্ধে কোহলিদের সেই সময়ে ফেভারিট হিসাবে ধরেছিলেন বেশিরভাগ বিশেষজ্ঞ। কিন্তু ওয়েলিংটনে খারাপ বোলিং এবং ততোধিক লজ্জার ব্যাটিংয়ে চতুর্থ দিনেই হারতে হলো কোহলিদের। ১০ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে জিতে একশোতম টেস্ট ম্যাচ জিতল নিউজিল্যান্ড, সিরিজে তারা এগিয়ে গেল ১-০ তে।

সোমবার ম্যাচের চতুর্থ দিনের শুরুটা ভারত করেছিল নিউজিল্যান্ডের থেকে ৩৯ রান পিছিয়ে থেকে। হাতে ৬ উইকেট থাকায়, বিশেষ করে রাহানে, হনুমা এবং ‘প্রতিভাবান’ রিশাব থাকায় তখনও লড়াইয়ের আশা দেখছিলেন অনেকেই। আশা আরও বাড়িয়েছিল, ৬৫ ওভারের পুরনো বল।

কিন্তু বুমরাহ-শামিদের সুইং যত সহেজে সামলে দিয়েছিলেন উইলিয়ামসনরা, চতুর্থ দিনের সকালে বোল্ট-সাউদিদের সুইংয়ে ততটাই বিধ্বস্ত হলেন রাহানেরা। প্রথমে বোল্টের বলে ফেরেন রাহানে। স্কোরবোর্ডে এক রান না বাড়িয়েই পরের ওভারেই ফেরেন হনুমা বিহারী। এরপর শুধু মাত্র আসা যাওয়ার পালা। ঋদ্ধিমানের থেকে ব্যাটিংয়ে এগিয়ে থাকায়, দলে সুযোগ পাওয়া রিশাব পান্ত করলেন মাত্র ২৫ রান। ৪৬ রানের মধ্যে ৬ উইকেট হারিয়ে মাত্র ১৯১ রানে অল আউট হলে গেল ভারত। ৫ উইকেট নিলেনে সাউদি, ট্রেন্ট বোল্ড নিলেন ৪ উইকেট। জেতার জন্য মাত্র ৯ রান টার্গেট নিয়ে নেমে, মাত্র ২ ওভারেই তা তুলে ফেলে কিউইরা। দুই ইনিংস মিলিয়ে ৯ উইকেট নিয়ে ম্যাচের সেরা হন টিম সাউদি।

ম্যাচে প্রথম ইনিংসে ভারত করেছিল ১৬৫ রান। জবাবে নিউজিল্যান্ড তাদের প্রথম ইনিংসে ৩৪৮ রান তুলেছিল৷

১০ উইকেটের বড় ব্যবধানে হেরে আপাতত অনেক প্রশ্নচিহ্ন নিয়ে ২৯ ফেব্রুয়ারি ক্রাইস্টচার্চে নামবে ভারত। সেখানেও যদি কোহলি অ্যান্ড কোম্পানির অফ ফর্ম বজায় থাকে তাহলে ওয়ানডে সিরিজের পর আরও একবার হোয়াইট ওয়াশের লজ্জা নিয়ে নিউজিল্যান্ড থেকে ফিরতে হবে ভারতকে।

ট্যাগ: bdnewshour24 নিউজিল্যান্ড