banglanewspaper

এক বছর তিন মাস পর ক্রিকেটের রাজকীয় ফরম্যাটে জয়ের সুবাস বাংলাদেশ দলে। শেষ ২০১৮ সালের নভেম্বর মাসে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়েছিল বাংলাদেশ। তবে এরপর আরো ছয়টি টেস্ট খেললেও হারতে হয়েছে সবকটিতে। যার মধ্যে পাঁচটিতেই ইনিংস ব্যবধানে হেরেছে বাংলাদেশ দল। অবশেষে কাঙ্ক্ষিত সেই জয়ের দেখা মিলল মিরপুরে। জিম্বাবুয়েকে ইনিংসসহ ১০৬ রানে হারিয়ে রাজসিক ফরম্যাটে জয় খরা কাটিয়েছে মুমিনুল হকের দল।

বাংলাদেশের এ জয়ে সব থেকে বড় অবদান রেখেছেন মুশফিকুর রহিম, মুমিনুল হক এবং বল হাতে নাঈম হাসান। ক্যারিয়ারের তৃতীয় ডাবল সেঞ্চুরি নামের পাশে যুক্ত করলেন মুশফিক। কেবল ডাবল সেঞ্চুরি হাঁকানোর রেকর্ডটিই যোগ হয়নি মুশির নামের পাশে সেই সঙ্গে বাংলাদেশের টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকও বনে গেছেন মি. ডিপেন্ডেবল।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৭ম টেস্ট জয়ে বাংলাদেশের নায়ক মুশির পাশাপাশি ১৯ বছর বয়সী অফস্পিনার নাঈম হাসান। ইনিংস ব্যবধানে জয়ের পথে প্রথম ইনিংসে ৪ উইকেটের সঙ্গে দ্বিতীয় ইনিংসে দ্বিতীয়বারের মতো তুলে নিলেন ৫ উইকেট। আর দুই ইনিংস মিলিয়ে নেন ৯ উইকেট।

প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ক্যারিয়ারের ৯ম টেস্ট সেঞ্চুরি তুলে নেন অধিনায়ক মুমিনুল হক। এরপর তার দেখানো পথে হেটে মুশফিকুর রহিম প্রথমে তুলে নেন ৭ম টেস্ট সেঞ্চুরি। তবে মুশি স্বপ্ন দেখছিলেন আরো বড় ছবির। শেষ পর্যন্ত শতককে পরিণত করলেন ডাবল শতকে। মুশফিক ২০৩ রানে অপরাজিত থাকার সময় ইনিংস ঘোষণা করেন অধিনায়ক মুমিনুল হক।

ট্যাগ: bdnewshour24 জিম্বাবুয়ে মুশফিক নাঈম